বাংলা দেখা না গেলে

রেজি নং-ডিএ-৯১১, ঢাকা ১৮ জানুয়ারী ২০২০, শনিবার। অনলাইন সংখ্যা: ১৬৩৮

চ্যালেঞ্জ উত্তরণে এগোচ্ছে সরকার

চ্যালেঞ্জ উত্তরণে এগোচ্ছে সরকার

০৭ জানুয়ারী ২০২০, ১১:৩৮, মঙ্গলবার ।

পথযাত্রা রিপোর্ট ।।

রেকর্ড সংখ্যক জনসমর্থন পেয়ে ইতিহাস গড়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের এক বছরের সাফল্য-ব্যর্থতার হিসেব বিবেচনায় ‘ভালো কিছু’র আশা দেখাচ্ছে সরকার।

বিশেষ করে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিগুলো পূরণে সরকারের পরিকল্পনা এবং পদক্ষেপ যেমন ইতিবাচক আকাঙ্ক্ষা বাড়িয়েছে, তেমনি বেশ কিছু মেগা প্রকল্প শেষ করা নিয়েও চ্যালেঞ্জের মুখে রয়েছে সরকার। সফলতা ও প্রত্যাশা বাড়ানোর পাশাপাশি বেশ কিছু ইস্যুতে চাপের মুখে পড়ে বিব্রত হয়েছে সরকার।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়লাভের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শপথ নেয় নতুন মন্ত্রীসভা। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন শেখ হাসিনা।

বিশ্লেষকরা বলছেন, গত এক বছরে সরকার বেশকিছু সফলতা দেখিয়েছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারের অন্যতম ছিলো দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি। দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের যুদ্ধ ঘোষণা এবং পদক্ষেপগুলো খুব প্রশংসিত হয়েছে।

দুর্নীতি বিরোধী এই শুদ্ধি অভিযানে রেহাই পায়নি দলের অনেক প্রভাবশালী নেতাও। এ বিষয় জনগণের মাঝে আকাঙ্ক্ষা বাড়িয়েছে বহুগুন। জনগণ প্রত্যাশা করছে, অচিরেই সরকার সমাজের প্রতিটি স্তরে শুরু করবে দুর্নীতি বিরোধী এই অভিযান।

সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারগুলোর মধ্যে অন্যতম আইনের শাসন ও মানবাধিকার রক্ষা, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদক নির্মূল, গ্রামের আধুনিক সুবিধা দেয়া, নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র্য বিমোচন ও বৈষম্য হ্রাস, খাদ্যনিরাপত্তা অর্জন ইত্যাদি।

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী সরকার মেগা প্রকল্পকে গুরুত্ব দিয়ে এগিয়ে নিচ্ছে উন্নয়ন। পদ্মা সেতুসহ প্রায় ডজন খানেক বড় প্রকল্প শেষ করাই সরকারের সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ। সেই লক্ষ্যে দ্রুত গতিতে চলছে কাজ।

বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা দাঁড়িয়েছে ২২ হাজার ৭২৭ মেগাওয়াট। যার মধ্য দিয়ে দেশে ৭৫ শতাংশ জনগোষ্ঠী বিদ্যুতের আওতাভুক্ত। বৃহৎ প্রকল্পের বাস্তবায়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়েছে।

স্বপ্নের পদ্মা সেতু প্রকল্পের ৭৩ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অগ্রগতি সাড়ে ১৮ শতাংশ। মেট্রোরেল লাইন-৬-এর কাজ এগিয়েছে ৪০ শতাংশ। এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ প্রায় অর্ধেক এগিয়েছে। কর্ণফুলী টানেলের কাজের ব্যাপক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে গত এক বছরে।

আরো উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর মধ্যে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৪১ দশমিক ২১ শতাংশ, পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দরের ৫৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ, পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ প্রকল্পের ১৭ দশমিক ১৫ শতাংশ, মাতারবাড়ী বিদ্যুৎ প্রকল্পের ২৬ দশমিক ৭২ শতাংশ এবং দোহাজারী-ঘুমধুম পর্যন্ত রেল সংযোগ প্রকল্পের অগ্রগতি হয়েছে ২৯ শতাংশ।

তবে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হলেও বাংলাদেশে গণতন্ত্র, মানবাধিকার সুরক্ষা ও আইনের শাসন, জবাবদিহিতার ক্ষেত্রে এখনো পিছিয়ে রয়েছে বলে সমালোচনা আছে। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো স্বাধীনভাবে কাজ করতে না পারার দীর্ঘদিনের আক্ষেপ এখনো বিদ্যমান। তবে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও মানবাধিকার ইস্যু সরকারের পরীক্ষা নিয়েছে।

এদিকে ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ প্রকল্পেও বেশ এগিয়েছে সরকার। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সেবার উন্নয়ন, কম্পিউটার ও দ্রুত গতির ইন্টারনেট সুবিধার মাধ্যমে গ্রামগঞ্জে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

কৃষিক্ষেত্রে সাফল্য থাকলেও সরকারের সবচেয়ে বড় হোঁচট পেঁয়াজে। দীর্ঘদিন লাগাম ছাড়া অস্বাভাবিক পেঁয়াজের বাজারে সরকারের অসহায়ত্ব হতাশ করেছে দেশের জনগণকে। সরকারের প্রথম বছরে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধিতে সরকার ছিল বিব্রত। কোরবানির চামড়ার ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে না পারায় আলোচনা-সমালোচনা ছিল। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের ক্ষেত্রে সরকারের কূটনীতিক সফলতা ধাক্কা খেয়েছে। আরো তবে নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র বিমোচন, খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনের নিশ্চয়তা বাস্তবায়নের পথে।

পাশাপাশি শিল্পায়ন, শিক্ষার উন্নতি, সড়ক, রেল ও বিমানপথে যোগাযোগ ব্যবস্থার অভূতপূর্ণ উন্নয়ন ঘটেছে। অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপনের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ স্বপ্ন পূরণের পথে অনেক দূর এগিয়েছে বাংলাদেশ।

দুই বছর আগে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে দেশের মানুষের প্রত্যাশা ছিল একটি যুগোপযোগী সড়ক আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন। শত প্রতিবন্ধকতা উপেক্ষা করে সে কঠোর আইন বিদায়ী বছরে বাস্তবায়ন শুরু করা হয়েছে।

সরকারের এই মেয়াদেই হোলি আর্টিজানের ঘটনায় সাত জঙ্গির ফাঁসির আদেশ এবং নুসরাত হত্যায় সব আসামির ফাঁসির আদেশ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় মাইলফলক হয়ে থাকবে।

তবে নতুন বছরে মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন, দুর্নীতি দমন এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করাই হবে সরকারের জন্য মূল চ্যালেঞ্জ।

***পথযাত্রায় প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

জাতীয় বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় এর সব খবর >>