বাংলা দেখা না গেলে

রেজি নং-ডিএ-৯১১, ঢাকা ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, শনিবার। অনলাইন সংখ্যা: ১৬৮১

ট্রাম্পের অভিশংসন নাটকের শেষ পর্ব উঠছে মঞ্চে

ট্রাম্পের অভিশংসন নাটকের শেষ পর্ব উঠছে মঞ্চে

১৬ জানুয়ারী ২০২০, ১১:০৩, বৃহস্পতিবার ।

পথযাত্রা ডেস্ক ।।

শেষের পথে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়ার দীর্ঘ নাটক। ইতিমধ্যে সফলভাবেই মঞ্চস্থ হয়ে গেছে বেশ কয়েকটা পর্ব। শুরু থেকেই প্রতিটি পর্বেই টানটান উত্তেজনা প্রত্যক্ষ করেছে সারা বিশ্বই।


খানিকটা নাটকীয় ঢঙে বলতে গেলে অভিশংসন দৃশ্যায়ন মঞ্চস্থে চার হাত-পায়ে প্রস্তুত প্রধান পরিচালক কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি।

আর প্রযোজক ডেমোক্রেটিক শিবির তো আছেই। বক্স অফিস তোলপাড় করতে বছরজুড়েই বিনিয়োগ করে যাচ্ছে। অবশেষে নাটকের শেষ পর্বও মঞ্চে আনতে সফল হল যুক্তরাষ্ট্রের এই প্রধান বিরোধী দল।

আসছে বুধবার, হোয়াইট হাউসের প্রতিবেশী ক্যাপিটল হিলের সরকারি দফতরেই মঞ্চস্থ হবে মার্কিন ইতিহাসের তৃতীয় ঐতিহাসিক ‘প্রেসিডেন্ট অভিশংসন’ নাটক।

শুরুতে সাই না থাকলেও দলের কর্ণধারকে নিয়ে বিরোধীদের এই ‘ট্রাজি-কমেডি শুনানি’র মঞ্চায়ন চান জনাকয়েক রিপাবলিকান নটবরও (সিনেটর)। তবে একেবারে শেষ অঙ্কে ট্রাম্পের পক্ষেই পুরো রিপাবলিকান।

ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এ অভিশংসন প্রক্রিয়া শুরু হয় গত বছরের জুন মাসে। এরপর সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত কয়েক পর্বে মার্কিন কংগ্রেসের অভিশংসন তদন্ত, অভিযোগ গঠন, সাক্ষীদের শুনানি প্রভৃতি কর্মকাণ্ড সম্পন্ন হয়।

সর্বশেষ গত ১৮ ডিসেম্বর ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে শুনানি পরবর্তী ভোটাভুটির মাধ্যমে ট্রাম্পকে অভিশংসনের পক্ষে রায় দেয় কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তৃতীয় প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিশংসিত হন ট্রাম্প। এরপর প্রায় চার সপ্তাহ কেটে গেছে। অবশেষে চূড়ান্ত পর্বের শুনানির জন্য বিশ্ববাসীর অপেক্ষার শেষ হতে যাচ্ছে।

এএফপি জানিয়েছে, মঙ্গলবার সিনেটের ডেমোক্র্যাট নেতাদের সঙ্গে বসেন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। অভিশংসনের যে দুটি ধারা গত মাসে হাউসে পাস হয়েছে সে দুটি সিনেটে পৌঁছে দেন তিনি।

তবে এ প্রস্তাব তোলার পর বিচারপ্রক্রিয়ার নিরপেক্ষতা নিয়ে সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকানদের প্রতি চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন পেলোসি। তার আশঙ্কা, বিচারপ্রক্রিয়া নিরপেক্ষ হবে না।

কারণ এরই মধ্যে রিপাবলিকানরা জানিয়েছেন, তারা সিনেটে নতুন করে কোনো সাক্ষীকে ডাকবেন না। ভোটাভুটির মধ্য দিয়েই তারা অভিশংসন বিচারপ্রক্রিয়া শেষ করতে চান। পেলোসির দাবি, ট্রাম্পকে অভিশংসন করা যায়, এমন প্রমাণসহ বহু সাক্ষী বর্তমানে তার হাতে রয়েছে। তিনি সেগুলো সিনেটে সবার সামনে উপস্থাপন করতে চান। হোয়াইট হাউসের সাবেক ও বর্তমান কয়েকজন কর্মকর্তাকেও ডাকতে চান তিনি।

ট্রাম্প অবশ্য অভিশংসন প্রক্রিয়া নিয়ে যথেষ্টই বিরক্ত। রোববার এক টুইটে তিনি এ প্রক্রিয়া দ্রুত শেষ করার দাবি জানিয়ে বলেন, ‘অভিশংসনের ফাঁস গলায় জড়িয়ে নিয়ে কেন থাকব আমি।

যেখানে আমি কোনো অন্যায় করিনি। কোটি কোটি ভোটারের সঙ্গেও এর মধ্যে দিয়ে অন্যায় করা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, কোনো বিচার বা শুনানির প্রয়োজন নেই।

এই বিচার ছাড়াই এ মামলা খারিজ করে দেয়া হোক। তিনি অভিশংসনের অভিযোগকে আবারও ‘সরষের মধ্যে ভূত খোঁজা’ বলে অভিহিত করেন।
সব ঠিক থাকলে আগামী বুধবারই ট্রাম্পের অভিশংসন শুনানি শুরু হচ্ছে সিনেটে। হোয়াইট হাউস সূত্রের খবর, ট্রাম্প শিবির সেখানে কীভাবে এগোবে, গত কয়েক সপ্তাহের লাগাতার প্রস্তুতিতে ‘ট্রাম্পের টিম’ মোটামুটি তৈরি হয়ে গেছে।

দল ট্রাম্পের হয়ে সওয়াল-জবাব করবেন, তার অন্যতম স্তম্ভ জে সেকুলো মঙ্গলবার বলেন, ‘এখন আমরা শুধু অভিশংসন ধারা সিনেটে ওঠার অপেক্ষায়।’

***পথযাত্রায় প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক এর সব খবর >>