বাংলা দেখা না গেলে

রেজি নং-ডিএ-৯১১, ঢাকা ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, শনিবার। অনলাইন সংখ্যা: ১৬৮১

ভারতে মুসলিম জনসংখ্যা বেড়েছে ৭-৮ গুণ

ভারতে মুসলিম জনসংখ্যা বেড়েছে ৭-৮ গুণ

১৬ জানুয়ারী ২০২০, ১২:২৫, বৃহস্পতিবার ।

পথযাত্রা ডেস্ক ।।

বিতর্কে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। স্বাধীনতার পর ভারতে সাত-আটগুণ বেড়েছে মুসলিমদের জনসংখ্যা। আর সেটা হয়েছে, তারা বিশেষ সুযোগ-সুবিধা এবং অধিকার পাচ্ছেন বলেই। এজন্য দেশে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন প্রণয়ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে প্রশংসা করা উচিত। একইসঙ্গে পড়শি দেশ পাকিস্তানকে আ’ক্র’মণ করে বলেন, এদেশে মুসলিমরা সংখ্যায় বাড়লেও, পাকিস্তানে হিন্দুরা কোথায়?‌
বিহারের গয়ায় সিএএ-র সমর্থনে প্রচারে গিয়ে আদিত্যনাথ বলেন, ‘‌১৯৪৭ সালের পর থেকে ভারতবর্ষে মুসলিম জনসংখ্যা সাত থেকে আট গুণ বেড়েছে। তাতে কারও সমস্যা নেই। মুসলিমরা দেশের উন্নয়নে অংশ নিচ্ছে, ভাল কথা। তাদের সমস্ত সুযোগ-সুবিধা ও অধিকার দিচ্ছে সরকার। কিন্তু পাকিস্তানে কী হচ্ছে?‌ সেখানে হিন্দু কোথায়?‌ দেশজুড়ে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে যে বিক্ষোভ চলছে তা একপ্রকার ষড়যন্ত্র।’

বিরোধীরা বাইরে থেকে এই ষড়যন্ত্রে মদত দিচ্ছে। বিক্ষোভকে ভয়াবহ করতে রীতিমতো আগুন জ্বালাচ্ছে। দেশের জনগণকে একটা বিষয় বুঝতে হবে, এই বিক্ষোভ আসলে ভুল বোঝানোর একটা পদ্ধতি মাত্র। আর নরেন্দ্র মোদি যে ধর্মের ভিত্তিতে জনগণের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করছেন তা ভুল। প্রচুর মানুষ উজ্জ্বলা গ্যাস যোজনা, আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছে। তাদের নাম যখন সরকারি প্রতিনিধিরা নথিভুক্ত করেন তখন কি ধর্মের ভিত্তিতে করা হয়? প্রতিবেশী দেশের এখন আশঙ্কা, জওহরলাল নেহরুর ভুল সিদ্ধান্তে তৈরি ৩৭০ ধারা বিলুপ্ত হওয়ায় পাক অধিকৃত কাশ্মীর বোধহয় হারাতে হবে।’‌ সূত্র : আজকাল

***পথযাত্রায় প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক এর সব খবর >>